দ্রুত মাথা ব্যথা কমানোর উপায় - মাথা ব্যথার কারণ

মাথা ব্যাথা খুবই যন্ত্রনাদায়ক একটি বিষয়। মাথা ব্যাথার সমস্যা নিয়ে প্রায় সবাই ভোগান্তিক। হঠাৎ করেই  মাথা ব্যাথা, কি কারনে হচ্ছে এমন মাথা ব্যাথা? বিষয়টি সম্পর্কে অনেকের জানা নেই। চলুন বিষয়টি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

দ্রুত মাথা ব্যথা কমানোর উপায়

মাথ্যা ব্যাথা প্রায় আমাদের হতে থাকে। কিন্তু আমরা অনেকেই জানিনা মাথা ব্যাথা কমানোর সঠিক উপায় কি। তাই আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করবো দ্রুত মাথা ব্যাথা কমানোর উপায় এবং কি কারনে মাথা ব্যাথা হয় এ বিষয়গুলোর সম্পর্কে।

মাথা ব্যাথা কমানোর উপায়

মাথা  ব্যাথা খুবই অস্বস্তিকর একটি বিষয়। বিভিন্ন কারনে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে, আর এ মাথা ব্যাথার কারনে মানুষকে বিভিন্ন ঝামেলায় পড়তে হয়। তাই সামান্য মাথা ব্যাথা হলেই আমরা ঔষধ খেয়ে ফেলি। তবে ঔষধ না খেয়ে কিছু ঘরোয়া উপায় আছে, যেগুলো করলে দ্রুত মাথা ব্যাথা কমে যাবে। আসুন জেনে নিই মাথ্যা ব্যাথা কমানোর উপায়গুলো কি-

পর্যাপ্ত পানি: মানবদেহে দৈনিক পর্যাপ্ত পানি প্রয়োজন, আর পর্যাপ্ত পানি না খেলে শরীরে বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হয়ে থাকে। তার মধ্যে একটি হলো মাথা ব্যাথা, পর্যাপ্ত পরিমাণে পানির অভাবেও মাথা ব্যাথা হতে পারে। তাই মাথা ব্যাথার সমস্যা হলে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানিপান করুন। 

দারুচিনি: আপনার রান্না ঘরে থাকা দারুচিনি দিয়ে আপনি মাথা ব্যাথা কমাতে পারেন। দারুচিনির মধ্যে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান স্নায়ুর প্রদাহ কমায়। এজন্য আপনি দারুচিনি গুড়ো করে চা করে খেতে পারেন, মাথা ব্যাথা  কমে যাবে। 

আদা: অল্প মাথা ব্যাথা সারাতে আদা খুবই কার্যকারী একটি উপাদান। কয়েকটুকরো আদা চিবিয়ে খেলে মাথা ব্যাথা দ্রুত কমে যাবে। এছারাও মাথা ব্যাথা কমাতে আদার  চা বানিয়ে খেতে পারেন। 

এলাচ: রান্নাঘরে থাকা এলাচ মাথা ব্যাথা থেকে মুক্তি দিতে পারে, মাথা ব্যাথা হলে সামান্য এলাচ নিয়ে চিবিয়ে খেতে পারেন। 

মিষ্টি কুমড়োর বিচি: মিষ্টি কুমড়োর বিচিতে ম্যাগনেসিয়াম সালফেট রয়েছে, যা মাথা ব্যাথা কমায়। তাই মাথা ব্যাথা হলে মিষ্টি কুমড়োর বিচি ভেজে খেলে ব্যাথা থেকে নিরাময় পাওয়া যায়। 

কাঠবাদাম: কাঠবাদামে থাকা স্যালিসিন মাথা ব্যাথা উপশমে কাজ করে। তাই মাথা ব্যাথা হলে একমুঠো কাঠবাদাম নিয়ে চিবিয়ে খাবেন, ব্যাথা অনেকটায় কমে যাবে। 

মাথ্যা ম্যাসাজ: মাথা ব্যাথা দূর করতে মাথায় ম্যাসাজ করতে পারেন। কিছুক্ষন ধরে ব্যাথার অংশে ম্যাসাজ করলে ব্যাথা দূর হয়ে যাবে। 

পুষ্টিকর খাবার: শরীরে পুষ্টির অভাব হলে মাথা ব্যাথা হতে পারে। তাই প্রতিদিন শরীরকে পুষ্টিকর খাবার দিতে হবে।

মাথার বিশ্রাম: মাথা ব্যাথা হতে শুরু করলে, মাথাকে বিশ্রাম দিন। অনেক সময় বেশি সময় ধরে মাথা খাটিয়ে কাজ করলে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। 

আশা করি এগুলোর মাধ্যমে আপনার অনেকটায় মাথা ব্যাথা কমে যাবে। এছারাও মাথা ব্যাথা দূর করতে, সবসময় হাসি খুশি থাকুন, সময়মতো বিশ্রাম নিন এবং টেনশন থেকে দূরে থাকুন। 

আরো পড়ুন: পেট ব্যাথা কমানোর ঘরোয়া উপায় - পেট ব্যাথা কমানোর দোয়া

ঘন ঘন মাথা ব্যাথার কারন কি

প্রচন্ড মাথা ব্যাথায় সব কিছুই অসহ্য মনে হয়। দিনভর মাথা ব্যাথা, ঘন ঘন মাথা ব্যাথা নিয়ে কাজ করা থেকে শুরু করে চলাফেরা সবকিছু অস্বস্তি মনে হয়। মাথা ব্যাথার সমস্যা প্রায় আমাদের সবার হয়। বিভিন্ন কারনে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। মাথা ব্যাথার কারনগুলো জানা থাকলে, আমরা মাথা ব্যাথার সমস্যা থেকে বের হয়ে আসতে পারবো। এমন অনেক কারণ আছে যেগুলো আমাদের বদঅভ্যাসের জন্য হয়ে থাকে। মাথা ব্যাথার কারনগুলো সাধারন বা জটিল দুই রকমের হয়ে থাকে।  তাই মাথা ব্যাথার কারনগুলো বিস্তারিতভাবে জানা থাকলে এ সমস্যার সমাধান আমরা পেয়ে যাবো। চলুন জেনে নেওয়া যাক ঘন ঘন মাথা ব্যাথার কারন কি।

  • মাথা সুস্থ রাখতে মাথাকে বিশ্রাম দেওয়া প্রয়োজন, একটানা মাথা খাটিয়ে কাজ করলে মাথা ঘন ঘন মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে।  
  • টেনশন মাথা ব্যাথার অন্যতম একটি কারন। অতিরিক্ত মাথায় চাপ দিলে, চিন্তা বেশি করলে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। 
  • অতিরিক্ত রোদ বা ধুলাবালিতে বেশি সময় ধরে থাকলে মাথা ব্যাথা হতে পারে। 
  • ধূমপান, মদ্যপান, মাদকাসক্তিতে আসক্ত থাকলে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। 
  • অতিরিক্ত শারিরিক বা মানসিক প্ররিশ্রম করা মাথা ব্যাথার একটি কারন। 
  • ঘুম কম হলে বা রাতে সময়মতো না ঘুমালে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। 
  • গ্যাসের কারনে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে।
  • ঠান্ডা সর্দি লেগে থাকার কারনে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। 
  • মাইগ্রেনের কারনে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। এছারাও  মাথায়  মধ্যে টিউমার বা অন্য কিছু থাকলেও  মাথা ব্যাথা হয়।  
  • মস্তিষ্কের রক্তক্ষরনের কারনে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। 
  • চোখে সমস্যা থাকার কারনে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। 
  • অতিরিক্ত ফোন বা কম্পিউটারের দিকে তাকিয়ে থাকার কারনেও মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে।

এসব বিভিন্ন কারনে ঘন ঘন মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। সাধারন কারনে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকলে ঘরোয়া উপায় বা মাথা ব্যাথার জন্য সাধারন যে ঔষধগুলো আমরা খেয়ে থাকি সেগুলো দিয়ে মাথা ব্যাথা দূর হয়ে যাবে। কিন্তু পর্যাপ্ত ঘুম, টেনশান না করলে অর্থ্যাৎ মাথাব্যাথার জন্য দায়ী এমন অভ্যাসগুলো না করেও মাথা ব্যাথা হয় এবং ঘরোয়া উপায়ে যদি ভালো না হয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। এছারাও সবথেকে একটি গুরুত্বপূর্ন একটি বিষয় হলো মাথা ব্যাথার সাথে যদি বার বার বমি হয় তাহলে দেরি না করে চিকিৎসকের শরনাপন্ন হতে হবে।

তীব্র মাথা ব্যাথার ঔষুধ

আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি সমস্যা হলো মাথা ব্যাথা। সবাইকে একবার হলেও এ সমস্যায় ভুগতে হয়েছে। মাথা ব্যাথা অল্প থেকে তীব্র হয়ে থাকে। মাথা ব্যাথার সমস্যা যদি সাধারন হয় তাহলে ঔষুধ বা ঘরোয়া উপায়ে সেরে যাবে। তাই তীব্র মাথা ব্যাথার কয়েকটি ঔষুধের নাম জেনে নিন যেগুলো ঘরোয়া উপায়ের পাশাপাশি সেবন করবেন। তীব্র মাথা ব্যাথার কয়েকটি ঔষুধের নাম -

  • Anilic (এনিলিক)
  • Arain (এ্যারেইন)
  • Migratol (মাইগ্রেটল)
  • Migrex (মিগরেক্স)
  • Tufnil (টাফনিল)
  • Tolfem (টলফেম)
  • Napa extra  (নাপা এক্সট্রা)
  • Paracetamol (প্যারাসিটামল)

তীব্র মাথা ব্যাথায় এসব ঔষুধ তাড়াতাড়ি কাজ করে, খাওয়ার পরে  এ ঔষুধগুলো খেতে হয়। তবে ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া এ ঔষধগুলো খাওয়া ঠিক নয়। কারন আপনার মাথা ব্যাথার ধরন অনুযায়ী ঔষধ খেতে হবে। এছারাও গর্ভবতী, বাচ্চারা, বয়স্করা এবং যাদের উচ্চ রক্তচাপ, আলসার, অ্যাজমা এসব সমস্যা আছে তারা ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া মাথা ব্যাথার ঔষুধসহ অন্য যেকোনো ওষুধ খাওয়া মোটেও ঠিক নয়।

মাথা ব্যথার কারণ

মাথা ব্যাথা কমানোর মলম

মাথা ব্যাথার সমস্যা নিয়ে অনেকেই চিন্তিত। তবে মাথা ব্যাথার সমস্যা নিয়ে ভয় পাবেন না। কারন অধিকাংশ মাথা ব্যাথা জটিল কোনো কারনে হয় না। মাথা ব্যাথা হলে ঘরোয়া উপায় এবং বিশ্রাম নিলে ভালো হয়ে যায়। এছারাও মাথা ব্যাথা হলে, মাথা ব্যাথা কমাতে আপনি মলম ব্যবহার করতে পারেন। এমন কয়েকটি মলম আছে যেগুলো আপনি ব্যবহার করলে মাথা ব্যাথা দূর হয়ে যাবে। জেনে নিন মাথা ব্যাথা কমানোর মলমের নাম-

  • Zandu Balm
  • Tiger Balm
  • Moov
  • Torel 
  • Volige
  • Ruba

Zandu Balm মলম: মাথা ব্যাথা কমাতে কার্যকারী একটি মলম হলো Zandu Balm. মাথা ব্যাথা করলে এ মলম দ্রুত মাথা ব্যাথা দূর করে। এছারাও এ মলম মাথা ব্যাথার পাশাপাশি সর্দি ভালো করে থাকে। এ মলমের কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই, তাই মাথা ব্যাথা হলে এটি নিসন্দেহে ব্যবহার করতে পারেন। 

Tiger মলম: মাথা ব্যাথায় Tiger মলম দ্রুত কাজ করে। মাথা ব্যাথার অসহ্য যন্ত্রনায় এ মলম আপনাকে স্বস্তি এনে দেবে। তাই মাথা ব্যাথার সমস্যা দেখা দিলে এ মলম ব্যবহার করবেন। এ মলমে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেয়।

Moov মলম:  মাথা ব্যাথা দূর করতে বিশেষ এক মলম এটি। অল্প সময়ের মধ্যে মাথা ব্যাথা দূর করে। শুধু মাথা ব্যাথায় নয়, শরীরের যেকোনো স্থানের ব্যাথা এ মলমের মাধ্যমে ভালো করা সম্ভব। এছারাও কাটা স্থানে এ মলমের কার্যকারিতা রয়েছে। তাই আপনার ঘরে সবসময় এ মলম রাখতে পারেন। এ মলমের কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেয়।

Torel মলম: এ মলম ব্যাবহারে অল্প সময়ের মধ্যে মাথা ব্যাথা ভালো হয়ে যায়। শুধু মাথা ব্যাথায় নয়, এছারাও  ঘাড়ের ব্যাথা, হাত-পায়ের ব্যাথা, মাংসপেশিতে ব্যাথা হলে এ মলম ব্যবহার করতে পারেন। 

Volige মলম: মাথা ব্যাথায় এ জেল ব্যবহার করলে, মাথা ব্যাথা দ্রুত ভালো হয়ে যায়। মাথা ব্যাথা হলে এ জেল শুধু লাগিয়ে দিবেন, ডলা যাবে না। মাথা ব্যাথা ছারাও শরীরের অন্য স্থানের ব্যাথায় এ মলম লাগাতে পারেন, আরাম পাবেন।

Ruba মলম: মাথা ব্যাথায় এ মলম খুবই ভালো কাজ করে। এছারাও শরীরের অন্য স্থানের ব্যথা, কাটা, পোড়া, মচকানো, পৃষ্ঠা বেদনা, থাঁতলানোর সমস্যায় এ মলম ব্যবহার করতে পারেন। 

মাথা ব্যাথার যন্ত্রনায় এ মলমগুলো ব্যাবহার করবেন, এ মলমগুলো ব্যবহারে মাথা ব্যাথার যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পাবেন।

আরো পড়ুন: দাঁতের ক্ষয় রোধের উপায় - দাঁতের ক্ষয় পূরন

মাথা ব্যাথা কমানোর দোয়া

মাথা ব্যাথা আমাদের স্বাভাবিক জীবনকে অসহনীয় করে তোলে। মাথা ব্যাথা প্রায় অনেকের হয়ে থাকে, তবে অনেকেই আছে সাইড ইফেক্টের ভয়ে মাথা ব্যাথার ওষুধ খেতে চায় না। ওষুধ খাওয়া সত্যিই ভালো নয়, সহজে যেকোনো ধরনের ওষুধ খাওয়া ঠিক নয় প্রার্শপ্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। মাথা ব্যাথা দূর করার জন্য শুধু ওষুধ খুঁজছেন কেন? মহান আল্লাহ তায়ালা তো আমাদের সব ধরনের সমস্যা থেকে মুক্তি দেওয়ার জন্য কুরআন ও হাদিস আমাদেরকে দিয়েছেন। এমন একটি দোয়া মাথা ব্যাথা কমানোর জন্য জেনে নিন-

আরিব উচ্চারণ: লা ইউসাদ্দাউনা আনহা ওয়া লা ইউংযিফুন’ ( সুরা ওয়াক্বিয়া, আয়াত: ১৯)

দোয়া পড়ার নিয়ম: যখন আপনার মাথা ব্যাথা হবে তখন এ দোয়াটি আপনার মাথা চেঁপে ধরে ৩ বার পড়বেন। 

দোয়ার মাধ্যমে যেকোনো ধরনের সমস্যা বা অসুস্থতা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। আশা করি বিশ্বাসের সহিত এ আমল মাথা ব্যাথায় করলে মহান আল্লাহ তায়াল মাথা ব্যাথায় আক্রান্ত ব্যক্তিকে সুস্থতা দান করবেন। ইন শা আল্লাহ’

মাথা ব্যাথা কোন রোগের লক্ষন

মাথা ব্যাথার একাধিক কারন রয়েছে। মাথা ব্যাথা বেশিরভাগ গুরুতর কোনো কারনে হয় না। তবে মাথা ব্যাথার ধরন অনুযায়ী ধারণা করা যায় মাথা ব্যাথা কি কারনে হচ্ছে। এমন অনেক ব্যাথা আছে যেগুলো জটিল কোনো রোগের লক্ষন হিসেবে দেখা দেয়। তাই মাথা ব্যাথা হলে ঘরোয়া উপায় বা সাধারন ব্যাথার ওষুধগুলো খেয়ে না কমলে বসে থাকা যাবে না ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। মাথা ব্যাথা কোনো রোগের উপসর্গ হিসেবে কাজ করে।  তাই জেনে নিন মাথা ব্যাথা কোন রোগের লক্ষন-

  • ব্রেন টিউমারের জন্য অনেক সময় মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। মাথার ডান পাশে যে অংশে টিউমার আছে সে অংশ ব্যাথা হয়ে থাকে। 
  • ব্রেনে ইনফেকশন হলে মাথা ব্যাথা হয়।
  • মাইগ্রেনের সমস্যা হলে মাথা ব্যাথা হয়। 
  • স্ট্রোক রোগের কারনে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে। 
  • মাথার ভিতরে রক্তপাত হলে মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে।

মাথা ব্যাথা হলে সঠিকভাবে বিষয়টাকে গুরুত্ব না দিলে এবং সঠিক সময়ে ডাক্তারের কাছে না গেলে বড় কোনো রোগ হয়ে যেতে পারে। মাথা ব্যাথা হলে কখন ডাক্তারের কাছে যাবেন জেনে নিন-

  • যদি মাথা ব্যাথা তীব্র হয়  বা হঠাৎ করে মাথা ব্যাথা হয় এবং মাথা ব্যাথা দ্রুত বেড়ে যায় তাহলে ডাক্তারের কাছে যেতে হবে। 
  • মাথা ব্যাথার সাথে রোগি ভুলভাল বা আবোলতাবোল বকলে। 
  • মাথা ব্যাথার সাথে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে। 
  • মাথা ব্যাথার সাথে প্রচন্ড চোখে ব্যাথা হলে। 
  • খিঁচুিন ইত্যাদি।

এসব উপরের লক্ষনগুলো মাথা ব্যাথার রোগির মধ্যে প্রকাশিত হলে দেরি না করে ডাক্তারের কাছে যেতে হবে। তাহলে মাথা ব্যাথা থেকে জটিল কোনো রোগ হওয়ার আশঙ্কা থাকবে না।

আরো পড়ুন: দাঁত সাদা করার উপায় - দাঁত সাদা করার ঘরোয়া উপায়

মাথার তালুতে ব্যাথা হলে করনীয়

মাথা ব্যাথার সমস্যায় প্রায় আমাদের পড়তে হয়। মাথা আমাদের শরীরের একটি গুরুত্বপূর্ন অংশ, তাই এ অংশের ব্যাথাকে অবহেলা করা ঠিক নয়। এই মাথা ব্যাথা বিভিন্ন কারনে হয়ে থাকে সেটা আমরা আগেই আলোচনা করেছি। আবার মাথা ব্যাথার বিভিন্ন ধরন রয়েছে, বিভিন্ন রোগির দেখা যায় মাথার ডান দিকে ব্যাথা হয়, বাম দিকে ব্যাথ হয়, আবার সামনে অথবা পিছনে ব্যাথা হয়, অনেক সময় দেখা যায় মাথার তালুতে বা মাথার উপরে ব্যাথা হয়। অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন মাথার তালুতে প্রচন্ড ব্যাথা কি করবো? জেনে নিন মাথার তালুতে ব্যাথা হলে করনীয় কি-

  • অতিরিক্ত মানসিক চাপের কারনে অনেক সময় মাথার তালুতে ব্যাথা হয়। সেজন্য বিশ্রাম নিলে অথবা পর্যাপ্ত ঘুমালে এ ব্যাথ্যা ভালো হয়ে যেতে পারে। 
  • মাথার তালুতে ব্যাথা হলে আইসবাগের সাহায্য নিতে পারেন। সেজন্য বাজার থেকে আইসব্যাগ কিনে তার মধ্যে বরফ দিয়ে মাথার তালুতে কিছুক্ষন রেখে দিন। তাহলে দেখবেন অল্প সময়ের মধ্যে মাথার তালুর ব্যাথা কমতে শুরু করেছে। 
  • মাথার তালুতে ব্যাথা হলে আদা চা বানিয়ে খাবেন, ব্যাথা থেকে উপশম পাবেন।
  • গ্যাস্ট্রিকের সমস্যার কারনে মাথার তালুতে ব্যাথা হয়ে থাকে। তাই গ্যাসের ওষুধ খেয়ে দেখতে পারেন। 
  • মাথার তালুতে ব্যাথা হলে অতিরিক্ত চা-কফি পান থেকে বিরত থাকতে হবে।

মাথা ব্যাথার সমস্যা থেকে ভালো থাকতে আপনার লাইফস্টাইল ঠিক করুন, বিশ্রাম নিন, পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমান, বেশি করে পানি পান করুন, টেনশন থেকে মুক্ত থাকুন। এরপরও মাথা ব্যাথা হলে সময় নষ্ট করবেন না ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন।

লেখকের শেষ বক্তব্য

দ্রুত মাথা ব্যথা কমানোর উপায় - মাথা ব্যথার কারণ সম্পর্কে আজকের এই ব্লগে সকল তথ্য তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আশা করি দ্রুত মাথা ব্যথা কমানোর উপায় - মাথা ব্যথার কারণ সম্পর্কে আপনি বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আপনি এই ধরনের প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ব্লগ পোস্ট নিয়মিত পড়তে চান তাহলে আপনাকে প্রতিনিয়ত আমাদের এই ওয়েবসাইট ফলো করতে হবে।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন