দাঁত সাদা করার উপায় - দাঁত সাদা করার ঘরোয়া উপায়

প্রিয় পাঠক, আজকের আর্টিকেলের বিষয় হচ্ছে কিভাবে দাঁত সাদা করা যায়? দাঁত সাদা করার ঘরোয়া উপায় কী? সুন্দর চকচকে দাঁত আমাদের সবার ভালো লাগে। কিন্তু আমরা অনেকেই দাঁতের যত্ন নিতে চাইনা। নিয়মিত ভাবে সঠিক উপায় জেনে দাঁতের যত্ন নিলে দাঁতের সমস্যা আমরা সহজেই দূর করতে পারি। আসুন জেনে নিই কীভাবে ঘরোয়া উপায়ে দাঁতের সমস্যা দূর করে দাঁতকে ঝকঝকে সাদা করা যায়। 

দাঁত সাদা করার ঘরোয়া উপায়

দাঁত পরিষ্কার করার ঘরোয়া উপায়

সঠিক যত্ন না নেওয়ার কারনে দাঁতে হলদে, কালো দাগ ও দাঁতে ছোপ পড়া শুরু করে। এসবের হাত থেকে বাঁচতে দাঁত সবসময় পরিষ্কার রাখতে হবে। দাঁতে দাগ থাকার কারনে আমরা মানুষের সামনে অনেক সময় কথা বলতে লজ্জাবোধ করি। চলুন জেনে নিই এ সমস্যা থেকে কিভাবে ঘরোয়া পদ্ধতিতে দাঁতের যত্ন নিতে হবে-

লেবুর রস: দাঁত সাদা করতে লেবুর গুরত্ব অনেক। সাদা লবন ও লেবুর রস দিয়ে একসাথে মিশিয়ে দাঁত মাজলে দাঁত পরিষ্কার হয়। এছারা লেবু খাওয়া দাঁতের জন্য বেশ উপকারি। দাঁতকে বিভিন্ন রোগের হাত থেকে বাঁচায়।

মাশরুম: দাঁত সাদা করতে মাশরুম খাবেন। এতে থাকে পলিস্যাকারাইড যা দাঁতের ক্ষতিকর ব্যাকটিরিয়া ধ্বংস করে দাঁতকে ভেতর থেকে পরিষ্কার করে।

কলার খোসা: কলার খোসা নিয়ে ৫ মিনিট দিনে দুবার দাঁতে ঘষুন। ৭ দিনের মধ্যে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার দাঁতের রং পরিবর্তন হচ্ছে। 

ব্রেকিং সোডা: ব্রেকিং সোডার ব্যবহার আপনার দাঁতকে ঝকঝকে সাদা করে তোলে। এজন্য আপনি টুথপেস্টের সাথে সামন্য কিছু সোডা মিশিয়ে ব্রাশ করুন। অল্প দিনের মধ্যে দাঁত উজ্জল দেখাবে।

নারিকেল তেল ও হলুদ: এক চামচ নারিকেল তেল তাতে অল্প করে হলুদ মিশিয়ে নিবেন। মিশ্রনটি দিয়ে ব্রাশ করুন দাঁত হবে ঝকঝকে। 

তুলসি পাতা: তুলসি পাতাকে শুকিয়ে পাউডার তৈরি করুন। সেই পাউডার সরিষার তেলের সাথে মিশিয়ে টুথব্রাশের সাহায্যে দাঁতে ঘষুন। এটি ব্যবহারে আপনার দাঁত সাদা হবে। দাঁতের মাড়ি শক্ত হবে। 

পুদিনা পাতা: কয়েকটি পুদিনা পাতা ভালো করে ব্লেন্ড করে নারিকেল তেলের সাথে মিশিয়ে, টুথব্রাশের মধ্যে নিয়ে দাঁতে লাগান। এরপর ৫ মিনিট রেখে ধুয়ে নিন। আপনার দাঁত পরিষ্কার দেখাবে।

আদা: আদার সাথে পাতি লেবুর রস অল্প পরিমানে লবন একসাথে মিক্স করে দাঁতে লাগিয়ে ৫ মিনিট মতো রেখে ধুয়ে ফেলুন। দাঁত পরিষ্কার হবে। 

উপরে যেসব উপাদানের কথা বলেছি তা সবগুলোই সহজলভ্য প্রায় সবার বাড়িতে থাকে। এই উপাদান গুলো ব্যবহার করে খুব সহজেই ঘরোয়া পদ্ধতিতে আপনার দাঁত পরিষ্কার ও সাদা হবে। 

দাঁতের কালো দাগ দূর করার উপায়

দাঁতে কালো দাগের প্রধান কারন ডেন্টাল প্ল্যাক। দাঁতে জমে থাকা খাবার ও ময়লা দাঁতে কালো দাগের জন্ম দেয়। দাঁতের সৌন্দর্য আমরা হারিয়ে ফেলি দাঁতে দাগ পড়ার কারনে। কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি আছে যা মেনে চললে আপনি পেতে পারেন দাগমুক্ত দাঁত। চলুন পদ্ধতি গুলো জেনে নিই-

দারুচিনি: একটুকরো দারুচিনি চিবিয়ে খেলে দাঁত ও মাড়ি শক্ত হয়। দারুচিনির পাউডারের সাথে মধু মিশিয়ে দাঁতে লাগান কিছুক্ষন রাখার পর ধুয়ে ফেলুন। 

বিটলবন ও সরিষার তেল: সামান্য বিটলবন ও সরিষার তেল একসাথে মিশিয়ে নিয়ে দাঁত ও দাঁতের মাড়িতে মাসাজ করুন। এতে দাতের দাগ দূর হবে। 

তেজপাতা: তেজপাতার পাউডারে লেবুর রস মিশিয়ে দাঁত মাজলে দাঁতের দাগ দূর হয়। 

কলা: কলার খোসার সাদা দিকটি নিয়মিত ঘষুন দাঁতের দাগ দূর হবে। 

লেবু ও ব্রেকিং সোডা: দাঁতের দাগ দূর করতে কার্যকরি দুটি উপাদান হলো লেবু ও সোডা। লেবু ও ব্রেকিং সোডা একসাথে মিশিয়ে, মিশ্রনটি দিয়ে দাঁত মাজতে হবে। দাঁতের দাগ দূর করবে এবং দাঁত সুস্থ থাকবে। 

কমলালেবুর খোসা: সকালে  ঘুম থেকে উঠে কমলালেবুর খোসা দাঁতে ঘষুন। এতে দাঁতের কালো দাগ দূর হবে। 

খাদ্যভাসের মাধ্যমে দাঁতের দাগ দূর করতে পারে এজন্য আপেল, গাজর,  বেদানা, জাম, ইত্যাদি খাবেন। নিয়মিত দাঁত ভালোভাবে মাজবেন।

আরো পড়ুন: ইসলামে মোটা হওয়ার উপায় - দ্রুত মোটা হওয়ার উপায়

দাঁতের মাড়ি কালো হয় কেনো

অনেক সময় দেখি দাঁতের সঙ্গে দাঁতের মাড়ি কালো হয়ে যায়। কালো মাড়ির কারনে আমরা কথা বলতে অনেক বিব্রতবোধ হয়। মাড়ির ব্যপারে আমাদের সতর্ক থাকা জরুরি। মাড়ি কালো হওয়ার বিভিন্ন কারন রয়েছে। কারনগুলো হলো-

১. কিছু ঔষধ খাওয়ার কারনে: কিছু কিছু ওষধ আছে যার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারনে মাড়ি কালো হয়ে যায়। ডাক্তারেরা বলেন কিছু ওষধ যেমন- অ্যান্টোবায়োটিক অতিরিক্ত গ্রহন, ম্যালেরিয়ার ঔষধ মাড়িকে কালো করে। যতি আপনি ওষধ সেবন করেন এবং মাড়ি কালো দেখায় তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ নিবেন। 

২. ধুমপান করার কারনে: ধুমপান ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায় আমরা সবাই তা জানি। তবে আমাদের অনেকের জানা নেই ধুমপান সেবন করলে আমাদের দাঁতের মাড়ি কালো হয়ে যায়। 

৩. মেলালিন জমে থাকলে: অতিরিক্ত মেলালিন জমে থাকার কারনে। দাঁতের মাড়ি কালো হয়ে যায়।

৪. জিংজিভাইটিসের কারনে: এটি দাঁতের মাড়ির একটি বিশেষ রোগ। এটি সংক্রামনের কারনে মাড়ির টিস্যু মারা যায় । যার কারনে মাড়ির রং কালো হয়ে যায়। 

দাঁতে কালো দাগ প্রতিরোধে প্রতিদিন দিনে দুবার নাস্তার পর  ব্রাশ করবেন। ব্রাশ করার আগে দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকা খাদ্য ও ময়লা বের করে নিন। প্রতিদিন কিছু ফল যেমন-আপেল, আমলকি, পেয়ারা, আমড়া ইত্যাদি চিবিয়ে খাবেন। শশা, টমেটো, গাজর ইত্যাদি সবজি নিয়মিত খান। ধূমপান, জর্দা, গুল, তামাক পাতা বাদ দিন। 

চা কফি খেলে দাঁতের দাগ দূর করার উপায়

আমরা অনেকেই চা কফি খেতে পছন্দ করি। কারো ক্ষেত্রে চা কফি খাওয়া অভ্যাসে পরিনত হয়েছে। কিন্তু চা কফি খাওয়ার জন্য আপনার দাঁতে দাগ সৃষ্টি হতে পারে। তবে সতর্কতার সাথে সঠিক উপায়ে চা কফি পান করলে দাঁতে দাগ দেখা দিবেনা। চা কফি যারা পান করে তাদের দাঁতের জন্য প্রয়োজন বিশেষ যত্নের। চলুন তাহলে চা পান করার সঠিক উপায় জেনে নেয়-

১. অল্প অল্প করে ১৫ মিনিট মতো সময় লাগিয়ে চা পান করুন। চা কফি খাওয়া শেষ হলে মুখের মধ্যে পানি নিয়ে ভালোভাবে কুলকুচি করুন। তাহলে চা কফি খেলেও আপানার দাঁত দাগ মুক্ত থাকবে।

২. কোল্ড কফি খাওয়ার সময় পাইপ দিয়ে কফি পান করুন, এতে দাঁতে দাগ সৃষ্টি হবেনা নিশ্চিন্তে কফি খেতে পারবেন।

৩. চা কপি পান করার ফলে দাঁতের এনামেল নরম হয়ে যায়। তাই কফি বা চা পান করার পর পরেই দাঁত ব্রাশ করবেন না। অন্তত চা কফি পান করার ৩০ মিনিট পরে দাঁত ব্রাশ করুন।

দাঁতের দাগ থেকে বাচাঁর জন্য চা কফি একবারেই পান করা বন্ধ করে দিবেন তা নয়। তবে অতিরিক্ত চা কফি পান করা উচিত নয়। চা কফি খাওয়ার পরে অবশ্যই গরম পানির সাথে লেবু মিশিয়ে কুলকুচি করবেন। চায়ের রং যত গাঢ় হয় দাঁতে দাগ পরার সম্ভবনা তত বেশি থাকে। তাই দাঁতের সুরক্ষায়, চেষ্টা করবেন চা এবং কফি কম গাঢ় খাওয়ার।

দাঁতের কালো দাগ দূর করার পেস্ট

দাগমুক্ত দাঁত পেতে অবশ্যই নিয়মিত ব্রাশ করা জরুরি। এর জন্য প্রয়োজন সঠিক টুথপেস্ট। তবে কোন টুথপেস্ট আমরা ব্যবহার করবো তা সঠিকভাবে আমাদের জানা নেই। চলুন বিস্তারিত জানা যাক-আমাদের দাঁতের জন্য ভালো এমন প্রয়োজনীয় উপাদানগুলো হলো-লবঙ্গ, পুদিনা, তুলসিপাতা, ব্রেকিং সোডা, পিপারমেন্ট এসব উপাদান আছে এমন টুথপেস্ট আমাদের ব্যবহার করা উচিত। দাঁতের কালো দাগ দূর করতে নিচের পেস্ট গুলো ব্যবহার করবেন।

১. পেপসুডেন্ট

২. ক্লোজ আপ

৩. মেডিপ্লাস

৪. কোলগেট

৫. সেনসোডাইন

৬. ডাবর রেট

এগুলো পেস্ট আপনি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন। এতে আপনার দাঁতের কালো দাগ দূর হবে। তবে সর্তকর্তার সাথে পেস্ট কিনবেন, চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে দাঁতের ধরন অনুযায়ী পেস্ট কিনুন। নিয়মিত দুবার ব্রাশ করুন। দাঁত সুস্থ ও দাগমুক্ত রাখুন।

আরো পড়ুন: চোখের নিচের কালো দাগ দূর করার উপায়

হলদে দাঁত সাদা করার উপায়

দাঁতের হলদে ভাব আমাদের মুখের সৌন্দর্য হারিয়ে দেয়। অনেক সময় হলদে দাঁত অস্বস্তির কারন হয়ে দাড়ায়। হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, ভিটামিন এ, ভিটামিন ডি, অতিরিক্ত ধুমপান, মদ্যপান, জর্দা, আতিরিক্ত চা কফি পান করলে দাঁতে হলদে ভাব দেখা দেয়। সহজ কিছু ঘরোয়া উপায় মেনে চললে দাঁতের হলদে ভাব দূর করা যায়। 

১. নিয়মিত স্ট্রবেরি খেলে অথবা দাঁতে ঘষলে দাঁত ঝকঝকে হয়। স্ট্রবেরির মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট গুন যা দাঁতের হলদে ভাব দূর করে। 

২. দাঁতের হলদে ভাব দূর করতে নিমগাছের ডাল খুবই উপকারি। প্রতিদিন নিম গাছের ডাল দিয়ে দাঁত মাজলে কয়েকদিনের মধ্যে দাঁতের হলদে ভাব দূর করবে। 

৩. সরিষার তেল ও লবনের মিশ্রনেও দাঁতের হলদে ভাব দূর করা যায়। সর্ষের তেলে এক চিমটি লবন  মিশিয়ে নিয়ে মিশ্রনটি দিয়ে দাঁতে মাজুন। দাঁতের হলদে দাগ দূর হবে।  

৪. তুলসি পাতা দাঁতের জন্য খুবই উপকারি। তুলসি পাতা রোদে শুকিয়ে নিয়ে সেগুলোকে গুড়া করে টুথপেস্টে মিশিয়ে নিয়মিত ব্রাশ করুন হলদে দাগ একেবারেই চলে যাবে। 

৫. ব্রেকিং সোডার মধ্যে এক চিমটি লবন দিয়ে মিশ্রন তৈরি করুন। এরপর মিশ্রনটি টুথপেস্টের সাথে মিশিয়ে দাঁত ব্রাশ করুন। এতে দাঁতের হলদে দাগ অল্প দিনেই দূর হবে। 

উপরের টিপসগুলো মেনে চলুন। ঠিকভাবে দাঁত ব্রাশ করুন। ধুমপানের অভ্যাস থাকলে তা বাদ দিন। দাঁত সবসময় পরিষ্কার রাখুন। ঘরোয়া উপায়ে যদি দাঁতের হলদে দাগ দূর করতে না পারেন চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। 

লেখকের শেষ বক্তব্য

দাঁত সাদা করার উপায় - দাঁত সাদা করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে আজকের এই ব্লগে সকল তথ্য তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আশা করি দাঁত সাদা করার উপায় - দাঁত সাদা করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে আপনি বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আপনি এই ধরনের প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ব্লগ পোস্ট নিয়মিত পড়তে চান তাহলে আপনাকে প্রতিনিয়ত আমাদের এই ওয়েবসাইট ফলো করতে হবে।


এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন