ইসলামে মোটা হওয়ার উপায় - দ্রুত মোটা হওয়ার উপায়

দ্রুত মোটা হওয়া প্রসঙ্গে আমাদের সকলের মধ্যে কমন কিছু প্রশ্ন থেকে থাকে। যেমন, মোটা হতে গেলে কি কি খাবার খেতে হবে? সকালে খালি পেটে কি খেলে শরীর মোটা হয়? খেজুর খেলে কি মোটা হওয়া যায়? ইত্যাদি। আজাকের এই ব্লগে আমরা জানবো ইসলামে মোটা হওয়ার উপায় সম্পর্কে কী বলে এবং দ্রুত মোটা হওয়ার গোপন ও কার্যকারী কিছু উপায়।

ইসলামে মোটা হওয়ার উপায়

ইসলামে মোটা হওয়ার উপায়

ইসলামে মোটা হওয়ার জন্য কার্যকারী উদাহরন স্বরুপ অনেক হাদিস রয়েছে। খেজুর ও শসা একসঙ্গে খাওয়া সুন্নাহ। শরীয়তের দৃষ্টিতে মোটা হওয়ার এবং শারিরিক স্বচ্ছলতার জন্য উপকারী খাবার হলো খেজুরের সাথে শসা খাওয়া। খেজুরের সাথে শসা খাওয়া সম্পর্কে হাদিসে পাওয়া যায়। হজরত আয়েশা রা: বর্ণনা করেছেন, আমার মায়ের ইচ্ছা ছিল আমাকে স্বাস্থ্যবতী বানিয়ে রাসূলুল্লাহ সা:-এর নিকট পাঠাবেন। এজন্য তিনি অনেক ব্যবস্থা গ্রহণ করেন, কিন্তু কোন ফল হয়নি। শেষে তিনি আমাকে পাকা খেজুরের সাথে শসা বা খিরা খাওয়াতে থাকলে আমি তাতে উত্তমরূপে স্বাস্থ্যের অধিকারী হই। (সুনানে আবু দাঊদ হাদিস নং ৩৯০৩)

আবদুল্লাহ ইবনু জাফর রা: বর্ণনা করেছেন, নবী সা: শসা খেজুরের সাথে একত্রে খেতেন। (সহীহ, ইবনু মা-জাত ৩৩২৫)

হজরত আয়েশা রা: বর্ণনা করেছেন, আমার মা আমাকে রাসূলুল্লাহ সা: এর সংসারে পাঠাতে চাচ্ছিলেন বিধায় আমার দৈহিক পরিপুষ্টির জন্য চিকিৎসা করাতেন। কিন্তু তা কোন উপকারে আসলো না। অবশেষে আমি তাজা খেজুরের সাথে শসা মিশিয়ে খেলাম এবং উত্তমরুপে দৈহিক পরিপুস্টি লাভ করলাম। (আবু দাউদ,হাদিস নংঃ ৩৩২৪)

তাই যারা ইসলামে মোটা হওয়ার উপায় খুজছেন তারা খেজুরের সাথে শসা নিয়মিত খেতে থাকুন, কয়েক মাসের মধ্যে স্বাস্থ্যবান হবেন ইনশাআল্লাহ।

সকালে খালি পেটে কি খেলে শরীর মোটা হয়

ওজন বাড়ানোর জন্য সকালের নাস্তায় যে খাবারগুলো যুক্ত করতে পারেন, তার মধ্যে রয়েছে দুধ, কলা, ডিম ও খেজুর। এই খাবারগুলো নিয়ম করে সকালে খালি পেটে খেলে শরীর মোটা হয়। প্রতিদিন সকালে উঠে হলকা গরম জলে মধু মিশিয়ে খেলে STOMACH-এর কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। ফলে গ্যাস-অম্বলের সমস্যা হয়না। সেই সঙ্গে মধুতে উপস্থিত একাদিক পুষ্টিকর উপাদান অ্যাসিডিটির সমস্যা কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

মোটা হতে গেলে কি কি খাবার খেতে হবে

স্বাস্থ্যবান বা মোটা হওয়ার জন্য খাবারের কোন বিকল্প নেয়। স্বাস্থ্যকর উপায়ে সহজে মোটা হতে চাইলে খেতে পারেন যেসব খাবার-

  • ডিম
  • পনির
  • ডার্ক চকলেট
  • দুধ
  • লাল মাংস
  • কলা
  • বাদাম
  • খেজুর
তবে বয়স ৪০ বছরের ওপরে হলে অবশ্যই শারীরিক অবস্থা বুঝে ও ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে খাবার খেতে হবে।

আরো পড়ুন: মুখের ব্রন দূর করার উপায় - ব্রন দূর করার ক্রিম

মোটা হওয়ার সহজ উপায়

মোটা না হাওয়া অনেকের কাছে বর্তমানে সমস্যার রূপ ধারন করেছে। সমস্যা যখন ররেছে সুতরাং সেই সমস্যার সমাধান নিয়ে আলোচনা করা যাক। তো চলুন মোটা হওয়ার সহজ কিছু উপায় জেনে নেওয়া যাক।

  • ব্যায়াম করা: ব্যায়ামের কথা শুনে অনেকের ভাবছেন শরীরের অতিরিক্ত অজন কমানোর জন্য ব্যায়ামের প্রয়োজন হয় কিন্তু মোটা হওয়ার জন্য কেন? এই ধারণা মোটেও ঠিক না। ওজন কমাতে যেমন শরীরের ব্যায়াম  প্রয়োজন ঠিক তেমনি ওজন বাড়াতেও ব্যায়াম করা খুবই প্রয়োজন। তবে আপনার শরীরের গঠন অনুযায়ী আপনার কি ধরনের ব্যায়াম করা প্রয়োজন তার জন্য অবশ্যই একজন জিম এক্সপার্ট এর সাথে পরামর্শ করে নিবেন।
  • বার বার খাবার গ্রহণ: মোটা হওয়ার জন্য বার বার খাবার গ্রহণ অনেক উপকারী। প্রতি ২-৩ ঘন্টা পর পর হালকা হালক করে খাবার খাওয়ার শুরু করুন। এসময় আপনি দুধ, দই, ফল, ছানা ইত্যাদি খেতে পারেন। 
  • টেনশনমুক্ত থাকুন: সব সমস্যার বড় কারণ হচ্ছে টেনশন। টেনশনমুক্ত থাকা খুবই কঠিন তাও চেষ্টা করবেন যতটা সম্ভব টেনশনমুক্ত থাকার। টেনশনমুক্ত জীবনযাপন মোটা হওয়ার জন্য খুবই কার্যকারী।
  • পরিমিত ঘুমান: প্রতিদিন নিয়ম করে অন্তত ৮ ঘন্টা ঘুমাতে হবে। বেশি রাত জাগার অভ্যাস বাদ দিতে হবে। ঘুম শরীরে জন্য অনেক উপকারী। এতে আপনার ওজন দ্রুত বৃদ্ধি পাবে।
  • ঘুমানোর আগে দুধ মধু খান: ঘুমানোর আগে দুধ মধু খান কেননা এগুলো পুষ্টিকর এবং ক্যালোরিযুক্ত। ঘুমানের আগে খাচ্ছেন বলে পুরো রাত আপনার শরীরে ক্যালোরির কাজ করবে এবং ওজন বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে।

মোটা হওয়ার ভিটামিন সিরাপ

আমাদের অনেকের একটা কমন প্রশ্ন মোটা হবো কিভাবে? মোটা হওয়ার জন্য বর্তমানে কার্যকারী অনেক ভিটামিন সিরাপ রয়েছে। যেগুলো আপনার শরীরকে স্বাস্থ্যবান হতে সহায়তা করবে। তবে ভিটামিন সিরাপগুলো সরাসরি মোটা হতে সাহায্য করেনা, আপনার মুখের রুচি বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে। এবং মুখের রুচি বৃদ্ধির ফলে আপনার শরীরে থাকা বিভিন্ন ভিটামিনের ঘাটতির অভাব পূরণ করবে। আমি কিছু ভিটামিন সিরাপের নাম উল্লেখ করছি-

  • কারমিনা সিরাপ
  • আমলকি প্লাস
  • পিউটন সিরাপ
  • রুচিবেট
  • সিনকারা সিরাপ

তবে ভিটামিন সিরাপগুরো খাওয়ার আগে অবশ্যাই ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহণ করবেন।

আরো পড়ুন: চোখের নিচের কালো দাগ দূর করার উপায়

মোটা হওয়ার দোয়া

আরবি: اللَّهُمَّ إِنِّي أَسْأَلُكَ بِحَقِّ الْمُصْطَفَى مُحَمَّدٍ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَنْ تُبَارِكَ لِي فِي رِزْقِي وَتَكْثِرَهُ وَتَطَوِّلَ عُمْرِي وَتُصْلِحَ جَسَدِي وَتُعَافِيَنِي مِنْ كُلِّ بَلَاءٍ وَتَرْزُقَنِي مِنْ حَيْثُ لَا أَحْتَسِبُ إِنَّكَ عَلَى كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ

বাংলা উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা ইন্নি আসআলুকা বিহক্কিল মুস্তাফা মুহাম্মাদিন সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আন্না তুবারিকালি ফির রিযকি ওয়া তাকতসিরাহু ওয়া তাত্বওইলা উম্রি ওয়া তুসলিহা জাসদী ওয়া তুআফিইয়ানি মিন কুল্লি বালায়ি ওয়া তরযুক্বানী মিন হাইসু লা আহতাসিবু ইন্নাকা আলা কুল্লি শাইয়িন কাদির।

অর্থ: হে আল্লাহ! আমি আপনার কাছে ঐ নবীর হক রক্ষা করে প্রার্থনা করছি, যিনি হলেন মুহাম্মাদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)। আপনি আমার রিযককে বরকতপূর্ণ করে দিন, তা বৃদ্ধি করুন, আমার আয়ু দীর্ঘ করুন, আমার শরীরকে সুস্থ করুন, আমাকে সকল বিপদ থেকে রক্ষা করুন এবং এমন রিযক দান করুন যেখান থেকে আমি আশা করি না। নিশ্চয়ই আপনি সবকিছুর উপর ক্ষমতাবান।

এই দোয়াটি প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা পাঠ করলে, আল্লাহ তাআলা কবুল করবেন এবং রিযক বৃদ্ধি করে দেবেন, ইনশাআল্লাহ।

শরীর সুস্থ রাখার দোয়া

আরবি: اللَّهُمَّ عَافِنِي فِي بَدَنِي اللَّهُمَّ عَافِنِي فِي سَمْعِي اللَّهُمَّ عَافِنِي فِي بَصَرِي لَا إِلَهَ إِلَّا أَنْتَ اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِنْ الْكُفْرِ وَالْفَقْرِ اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِنْ عَذَابِ الْقَبْرِ لَا إِلَهَ إِلَّا أَنْتَ 

বাংলা উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা আফিনি ফি বাদানি, আল্লাহুম্মা আফিনি ফি সাময়ি, আল্লাহুম্মা আফিনি ফি বাসারি; লা ইলাহা ইল্লা আনতা।

অর্থ: হে আল্লাহ, আমার দেহ সুস্থ রাখুন, হে আল্লাহ, আমাকে সুস্থ রাখুন আমার শ্রবণশক্তিতে, হে আল্লাহ, আমাকে সুস্থ রাখুন আমার দৃষ্টিশক্তিতে; আপনি ছাড়া কোনো ইলাহ নেই।

উপকারিতা: আবদুর রহমান ইবনে আবি বকর (রা.) থেকে বর্ণিত, আমি আমার পিতাকে বললাম, হে বাবা, আমি আপনাকে প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যায় তিনবার উল্লিখিত দোয়া পাঠ করতে শুনি। তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে এ বাক্যগুলো দ্বারা দোয়া করতে শুনেছি। আর আমি তাঁর সুন্নত অনুসরণ করতে ভালোবাসি। (সুনানে আবি দাউদ, হাদিস : ৫০৯০)

লেখকের শেষ বক্তব্য

ইসলামে মোটা হওয়ার উপায় - মোটা হওয়ার দোয়া ও আমল সম্পর্কে আজকের এই ব্লগে কার্যকারী কিছু টিপস তুরে ধরার চেষ্টা করেছি। আশা করি মোটা হওয়ার সহজ উপায় গুলো সম্পর্কে আপনি বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আপনি এই ধরনের প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ব্লগ পোস্ট নিয়মিত পড়তে চান তাহলে আপনাকে প্রতিনিয়ত আমাদের এই ওয়েবসাইট ফলো করতে হবে।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন