ঘর থেকে ইঁদুর তাড়ানোর উপায় - ইঁদুর মারার বিষের নাম

ইঁদুরের সমস্যা প্রায় প্রত্যেক ঘরেই রয়েছে। ইঁদুরের উপদ্রব যেন দিন দিন বেড়েই চলেছে। প্রায় সব বাড়িতেই ইঁদুরের স্থান। রাত নামলেই শুরু হয় ইঁদুরের দৌরাত্ম। পুরো বাড়ি যেন ইঁদুরের দখলে। ইঁদুর আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনেক ক্ষতি করে। তাই ইঁদুর তাড়ানোর উপায় আমাদের সবার জানা উচিত।

ঘর থেকে ইঁদুর তাড়ানোর উপায়

প্রিয় পাঠক আপনি কি ঘর থেকে ইঁদুর তাড়ানোর উপায় এবং ইঁদুর মারার বিষের নাম সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে আমার বলা আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ুন। আমি এই আর্টিকেলে ইঁদুর মারার ঘরোয়া উপায়, ইঁদুর মারা বিষের নাম, কোন কোন উপায়ে ইঁদুর মারা যায়, ইঁদুর কামড়ালে কি ক্ষতি হয়, এসব সম্পর্কে আলোচনা করবো। কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করি বিস্তারিত আলোচনা।

ঘর থেকে ইঁদুর তাড়ানোর উপায়

আমাদের প্রত্যেক বাড়ির সাধারন একটি সমস্যা হলো এই ইঁদুর। এটি একটি বিরক্তিকর প্রানী। ইঁদুর আমাদের বাসাবাড়িতে থেকে অনেক ক্ষতি করে। ইঁদুর আমাদের জামাকাপড়, প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র, ঘরে থাকা বিভিন্ন জিনিসের ক্ষতি করে। সুযোগ পেলেই ইঁদুর আমাদের বড় ক্ষতি করে দেয়। তাই আমাদের সতর্ক থাকা জরুরি এবং ইঁদুর মারা পদ্ধতি গুলো জানা উচিত। আসুন জেনে নিই ইঁদুর তাড়ানোর উপায় গুলো কি।

পুদিনা পাতা ও পুদিনা পাতার তেল: ইঁদুর তাড়ানোর জন্য পুদিনা পাতা ও পুদিনার তেল খুবই কার্যকরি। ইঁদুর তাড়ানোর জন্য ইঁদুর থাকার জায়াগা গুলোতে পুদিনা পাতা রেখে দিন। তাহলে অল্প দিনেই ইঁদুর কমে যাবে।

গোলমরিচ: ইঁদুর মারার জন্য গোলমরিচ একটি উপকারি উপাদান। আপনার বাড়িতে যে স্থানে ইঁদুর ঘোরাফেরা করে সেখানে গোলমরিচ রেখে দিন। গোলমরিচের গন্ধ ইঁদুর নিতে পারেনা। ফলে ইঁদুর কমে যাবে। 

পেঁয়াজ: পেঁয়াজ দিয়েও আপনি আপনার বাড়ি থেকে ইঁদুর তাড়াতে পারেন। ইঁদুর থাকে এমন জায়গায় পেঁয়াজ রেখে দিন। কয়েকদিনের মধ্যে ইঁদুরের উপদ্রব কমে যাবে। 

ন্যাপথেলিন: ইঁদুরের আসা যাওয়ার রাস্তায় ন্যাপথেলিন দিয়ে রাখুন আপনার বাড়ি থেকে অল্প দিনের মধ্যে ইঁদুর দূর হবে। 

শুকনো মরিচের গুড়া: যেসব জায়গায় ইঁদুর দৌড়াদৌড়ি করে  সে জায়গা গুলোতে কাপড়ের মধ্যে মরিচের গুড়া দিয়ে মুড়ে রেখে দিন। আশা করি ইঁদুর কমে যাবে। 

বেকিং পাউডার: ইঁদুরের উপদ্রব কমাতে ঘরের মধ্যে বেকিং পাউডার ছিটিয়ে রাখুন। বেকিং পাউডারের গন্ধ ইঁদুর সহ্য করতে পারেনা। ফলে ইঁদুর কমে যাবে। 

পেপারমেন্ট: ইঁদুরের যাতায়াতের রাস্তায় পেপারমেন্ট কাগজকে তেলে ডুবিয়ে তুলোর সাথে ছোট ছোট বল করে রেখে দিন। ইঁদুর কমে যাবে। 

লবঙ্গ: ইঁদুরের যাতায়াতের রাস্তায় কয়েকটি লবঙ্গ রেখে দিন ইঁদুরের যন্ত্রনা থেকে রেহায় পাবেন। 

ফিটকিরি: ফিটকিরির গুড়া যেসব স্থানে ইঁদুর ঘোরাফেরা করে সেসব যায়গায় ছিটিয়ে দিন।  ফিটকিরির গন্ধ ইঁদুর নিতে পারে না। ফলে ইঁদুর কমে যাবে। 

তামাক: ইঁদুরের যন্ত্রনা থেবে বাঁচতে তামাক ব্যবহার করতে পারেন। বেসন বা আটার সাথে ঘি এবং তামাক মিশেয়ে ছোট ছোট বলের মতো আকৃতি করে ইঁদুরের স্থানগুলোতে রেখে দিন। ইঁদুর ঘর থেকে পালাবে। 

তেজপাতা: ইঁদুর আসা যাওয়ার রাস্তায় বা তাদের গর্তের সামনে তেজপাতা রেখে দিন। তেজপাতা খেয়ে ইঁদুর মরে যাবে। 

শুকনো গবর: শুকনো গবর যদি ভূলে কোনো ইঁদুর খেয়ে ফেলে তাহলে তার মৃত্যু অবশ্যই হবে। এজন্য আপনি শুকনো গবর ইঁদুরের গর্তের সামনে রেখে দিন। 

ফিনাইল বরি: ফিনাইল বরির গন্ধ ইঁদুর সহ্য করতে পারেনা। একটি সুতায় বরিগুলো দিয়ে ঝুলিয়ে রাখুন। দেখবেন অল্পদিনেই ইঁদুর কমে গেছে। 

ইঁদুর মারা জন্য বিভিন্ন ধরনের বিষ বা ঔষধ পাওয়া যায় এগুলো দিয়েও ইঁদুর মারতে পারেন। অনেক রকমের ফাঁদ বা যন্ত্রের সাহায্যেও ইঁদুর মারতে পারেন। বাজারে বিভিন্ন ধরনের ইঁদুর মারার জন্য মেশিন পাওয়া যায়। এই মেশিনে কোনো খাবার রেখে দিতে হবে এরপর মেশিনের মুখ খোলা রাখতে হবে। ইঁদুর সেখানে ঢুকে খাবার খেলে মেশিনের দরজা নিজ থেকেই বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ইঁদুর আটকা পড়ে যায়।

উপরের বলা উপায়গুলোর মাধ্যমে আপনার বাড়ি থেকে ইঁদুর তাড়ানো সম্ভব হবে।

আরো পড়ুন: বাচ্চাদের বিছানায় প্রস্রাব সমস্যার সমাধান

ইঁদুরে কামড়ালে কি হয়

ইঁদুরের কামড় খুবই যন্ত্রনা দায়ক। এই ইঁদুর আমাদের অনেক ক্ষতি করে। ইঁদুর দেখতে ছোট প্রানী হলেও এর ক্ষতিকারক দিকটা অনেক বড়। ইঁদুরে কামড়ালে শরীরে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। ইঁদুরে কামড়ালে যেসব সমস্যা হয়-

  • ইঁদুর আমাদের শরীরে যে জায়গায় কামড়ায় সে জায়গায় চুলকানির সৃষ্টি হয়। 
  • ইঁদুরের কামড়ে আক্রান্ত জায়গায় ব্যাথা হয়, লালচে হয় এবং ফুলে যায়। 
  • ইঁদুরের কামরের ফলে জয়েন্ট বা মাংপেশিতে ব্যাথা হয়। 
  • মাথা ব্যাথ্যাসহ জ্বর হতে পারে। 
  • ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। ইনফেকশন হলে শরীরে মারাক্তক ক্ষতি হতে পারে। 

ইঁদুর কি রোগ ছড়ায়

বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন ইঁদুর প্রায় ৬০ ধরনের রোগ বহন করে থাকে। ইঁদুরের নিঃস্বাসের মাধ্যমে মানুষের বিভিন্ন রোগ দেখা দেয়। ইঁদুরের মধ্যে এক ধরনের ক্ষতিকারক  ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস থাকে। যা মানুষের জন্য ক্ষতিকারক। ইঁদুর কামড়ালে বা আঁচরালে কিংবা ইঁদুরের মলমূত্র ও লোমের মাধ্যমেও বিভিন্ন রোগের সৃষ্টি হতে পারে। তবে সব ইঁদুর কামড়ালে রোগ হয় না। কিছু ইঁদুর আছে যেগুলো মানুষকে কামড়ালে বিভিন্ন রোগ ছড়ায়। ইঁদুর যেসব রোগ ছড়ায় তার মধ্যে রয়েছে- প্লেগ, চর্মরোগ, আইরোসিস, কৃমি রোগ, হান্টা ভাইরাস, জ্বর, টাইফয়েড, জন্ডিস, জলাতঙ্ক রোগ, কলেরা, তুলারেসেমিয়া, স্যাভটিক ট্যাফুস, ইত্যাদি ।

তবে সবার শরীরে এ রোগ সৃষ্টি নাও হতে পারে। ইঁদুর কামড়ালে শরীরে কোনো সমস্যার সৃষ্টি হলে সাথেসাথে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। কারন ইঁদুর কামড়ার ফলে কি রোগ আপনার শরীরে হবে সেটা ডাক্তার ছাড়া বলা সম্ভব নয়। 

ইঁদুর কামড়ালে করনীয়

ইঁদুর কামড়ালে অনেক সময় ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বিশেষ করে গ্রাম্য বা বন্য এলাকায় এ সমস্যা বেশি দেখা দেয়। ইঁদুর কামড়ালে অনেক সময় বড় ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হয়। ইঁদুর কামড়ালে কিছু প্রাকৃতিক চিকিৎসা আছে যেগুলো করা প্রয়োজন। চলুন প্রাথমিক উপায়ে আমরা কি করবো জেনে নিই-প্রথমে রক্ত ক্ষরন বন্ধ করুন। রক্তক্ষরন যাতে বন্ধ হয় সে জন্য পরিষ্কার কাপড় বা গজ দিয়ে চেপে ধরুন। আক্রান্ত জায়গাটি গরম পানি ও সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। যে স্থানে কামড়াবে সে স্থানে অ্যান্টিসেপটিক বা পার অক্সাইড দিয়ে ভালো করে পরিষ্কার করবেন। ইনফেকশান হলে  আপনার শরীরে জটিল সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে টি টি ভ্যাকসিন দিয়ে দিতে হবে। তাতে ঝুঁকির সম্ভাবনা কমে যাবে। 

ইঁদুর মারা বিষের নাম

ইঁদুরের উপদ্রব দিন দিন বেড়েই চলেছে। প্রতিনিয়তে ইঁদুরের উৎপাতে অসহনীয় হয়ে পড়েছে মানুষ। বাংলাদেশে ইঁদুরের আক্রমনের ফলে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এমন অনেক তীব্র বিষ আছে যার মাধ্যমে ইঁদুর মারা সম্ভব হচ্ছে। চলুন জেনে নিই ইঁদুর মারার কয়েকটি বিষের নাম-

  • ল্যানিরেট
  • কারেন্ট বিষ
  • গম বিষ
  • ইবিচ র‌্যাট কিলার
  • ত্রাস র‌্যাট কিলার
  • ব্রমাপয়েন্ট
  • D-con kill mick
  • Ratphos Rat Roison 
  • Ratol Zink 
  • Atrarat

এসব বিষ খেলে  ইঁদুর সহজেই মরবে। সতর্কতার সাথে বিষগুলো ব্যবহার করবেন। বাচ্চাদের নাগালের বাইরে রাখবেন।

আরো পড়ুন: রাতে ঘুমানোর সঠিক সময় কখন - কত ঘন্টা ঘুমানো উচিত

ইঁদুর মারা কি ইসলামে জায়েজ

আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাসম্মাদ স. এমন ৫ টি প্রানীর কথা উল্লেখ করেছেন যেগুলো  ইসলামে মারা জায়েয আছে। হযরত আয়েশা রা. আনহা থেকে বর্নিত- পাঁচ প্রকারের প্রানী বেশি অনিষ্টকারি। এদেরকে হারাম সীমানার মধ্যেও মেরে ফেলতে হবে। এ প্রানীগুলো হলো ইঁদুর, বিচ্ছু, কাক, চিল, এবং  হিংস্র কুকুর। 

রাসূল সা. বলেছেন, এমন পাঁচ প্রকারের প্রানী আছে যেগুলো হত্যা করলে গুনাহ হবেনা। সেখানে এই পাঁচ প্রানীর কথা উল্লেখ করেছিলেন। 

ইঁদুর একটি ক্ষতিকারক প্রানী। এটি আমাদের মাঠের দানাজাতীয় ফসল,শাকসবজি এবং ফলের ক্ষতি করে। আবার বাড়িতেও বিভিন্নভাবে আমাদের ক্ষতি করে। ইঁদুর প্রায় ৬০ প্রকার রোগ  ছড়ায়। ইঁদুরের ক্ষতিকারক মাত্রা বেশি হওয়ায় এটি ইসলামে মারা জায়েয আছে। তবে সব ক্ষতিকারক জীবকে মারা জায়েয নেয়। ক্ষতিকারক প্রানীগুলোকে বিভিন্নভাবে মারা জায়েয আছে। যেমন- ফাঁদ পাতা, বিষ প্রয়োগ, গ্যাস ট্যাবলেট অথবা অন্য কোনো উপায়ে। তবে আগুনে পুরিয়ে মারা যাবে না। হাদিসে এভাবে মারা নিষেধ আছে।

লেখকের শেষ বক্তব্য

ঘর থেকে ইঁদুর তাড়ানোর উপায় - ইঁদুর মারার বিষের নাম সম্পর্কে আজকের এই ব্লগে সকল তথ্য তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আশা করি ঘর থেকে ইঁদুর তাড়ানোর উপায় - ইঁদুর মারার বিষের নাম সম্পর্কে আপনি বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আপনি এই ধরনের প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ব্লগ পোস্ট নিয়মিত পড়তে চান তাহলে আপনাকে প্রতিনিয়ত আমাদের এই ওয়েবসাইট ফলো করতে হবে।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন