শাকিব খানের মোট সম্পত্তি - শাকিব খানের পড়াশোনা

বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের চলচিত্রে সেরা নায়ক শাকিব খান। তিনি বিভিন্ন সিনেমা করে দর্শকের মন জয় করে নিচ্ছে। বাংলাদেশেরে জনপ্রিয় নায়কগুলোর তালিকায় আছেন শাকিব খান। শাকিব খানের সিনেমাা প্রায় আমরা দেখি, তার অভিনয়ে প্রায় মানুষ মুগ্ধ হয়ে যায়। তবে শাকিব খানের বাস্তব জীবনী, তার শিক্ষাগত যোগ্যতা, ব্যক্তিগত জীবন, তার সম্পদ সম্পর্কে আমাদের অনেকের জানা নেই। তাই আজকের আর্টিকেলে আপনাদের জানাবো শাকিব খান সম্পর্কে যাবতীয় সকল তথ্য। যারা শাকিব খানের বাস্তব জীবন সম্পর্কে জানতে আগ্রহী তারা আজকের আর্টিকেলটি পড়লে জানতে পারবেন।

শাকিব খানের মোট সম্পত্তি

শাকিব খান সম্পর্কে

চলচিত্র জগতে সেরা অভিনেতা হলো শাকিব খান। শাকিব খান ১৯৭৯ সালে ২৮ শে মার্চ গোপালগঞ্জ  জেলার মুকসুদপুরের  রাঘনী এলাকায় মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। তার আসল নাম মাসুদ রানা, ছোটবেলায় পরিবারের সবাই তাকে এই নামেই ডাকতেন। শাকিব খানের বাবার নাম আব্দুর রব এবং মায়ের নাম নূরজাহান। তার বাবা ছিলেন একজন সরকারি কর্মচারি আর মা ছিলেন গৃহিনী। ১৯৯৯ সালে পরিচালক আফতাব খান  টুলুর হাত ধরে ক্যামরার সামনে প্রথম তিনি দাড়িয়ে ছিলেন।  কিন্তু সোহানুর রহমানের হাত ধরে তিনি চলচিত্র জগতে যাত্রা শুরু করেন।

তার প্রথম ছবির নাম অনন্ত ভালোবাসা, যার পরিচালক ছিলেন সোহানুর রহমান সোহান। এরপর দিত্বীয় ছবি শাবনূরের বিপরীতে গোলাম’ সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি। এরপর থেকেই তার সিনেমা করার আগ্রহ বেড়ে যায়।  শাকিব খান তার কর্মজীবনে অনেক বার পুরষ্কার পেয়েছেন, যার মধ্যে চারটি জাতীয় চলচিত্র পুরস্কার, আটটি মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার, তিনটি বাচসাস পুরস্কার ও চারটি সিজেএফবি পারফরম্যান্স পুরস্কার। তার অভিনয়ে মুগ্ধ হয়ে বিভিন্ন নামে তাকে সম্বোধিত করা হয়েছে। দর্শক তাকে সুপারস্টার, কিং খান এবং ঢালিউড কিং নামে সম্বোধিত করে থাকেন। 

শাকিব খানের মোট সম্পত্তি

বাংলাদের বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বড় মানের একজন অভিনেতা হলো শাকিব খান। পর পর হিট সিনেমা তিনি দর্শকদের উপহার দিতেই আছেন। বর্তমানে বেশি পারশ্রমিক নিয়ে যারা ছবিতে কাজ করছেন, তাদের মধ্যে শাকিব খান এগিয়ে। এক একটা ছবিতে তিনি অনেক বেশি পারশ্রমিক নিয়ে থাকেন। এত মানের বড় অভিনেতা তিনি, তাহলে তিন কত সম্পত্তির মালিক হতে পারে? সবার মনে প্রশ্ন আসে তাই না? চলুন তাহলে বিস্তারিত জেনে নিই শাকিব খান কত সম্পত্তির মালিক।

১৯৯৯ সালে তার প্রথম সিনেমা ছিল অনন্ত ভালোবাসা, আর সে ছবিতে তিনি মাত্র ৫০০০ টাকা পারশ্রমিক নিয়েছিলেন। এরপর প্রথম দিকে তিনি ৩০ হাজার মতো পারশ্রমিক নিতেন। তারপরও তিনি সিনেমা থেকে সরে যান নি। ধৈর্য, চেষ্টা দিয়ে সামনে এগিয়ে গেছেন এবং পরিশেষে তিনি সফল হতে পেরেছেন। ক্যারিয়ারের ২৫ বছর ধরে অভিনয় করে চলেছেন তিনি, এই ২৫ বছরে তিনি ২৫০ টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। একের পর এক হিট সিনেমা এখনও তার বের হতেই আছে। বর্তমানে তিনি প্রতিটা সিনেমা করার জন্য ৬০ থেকে ৭০ লক্ষ টাকা পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন। তবে গনমাধ্যমে জানা যাচ্ছে তার প্রিয়তমা ছবি বের হওয়ার পর পারশ্রমিক বাড়িয়ে কোটিতে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি। তবে এর সঠিক তথ্য এখনও জানা যায় নি। এছারাও বিভিন্ন বিজ্ঞাপন করতে ৪ লক্ষ টাকা নিয়ে থাকেন তিনি। টেলিভিশন সো, স্টেজ শো তে অনেক পারশ্রমিক নিয়ে থাকছেন তিনি। ধারনা করা হচ্ছে প্রতি বছর দেড় কোটি টাকারও বেশি আয় করে থাকছেন।

বর্তমানে তিনি কত টাকা সম্পত্তির মালিক নিজ মুখে কোনোদিন তিনি বলেন নি। তবে বিভিন্ন সূত্রের খবর থেকে জানা গিয়েছে শাকিব খান বর্তমানে ২০ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি সম্পত্তির মালিক। যা বাংলাদেশি টাকার পরিমান ২১৫ কোটি টাকা।

শাকিব খানের পড়াশোনা

শাকিব খানের পড়াশোনা

শাকিব খান নামটা বেশ পরিচিত এবং ছোট বড় প্রায় সবাই তাকে চিনি। শাকিব খান বড় মানের একজন সুপারস্টরা হওয়ায় সবাই তার শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্পর্কে জানতে আগ্রহী। তবে শাকিব খান পড়াশোনা খুবই কম করেছেন। শাকিব খান ভালো অভিনয়ের পাশাপাশি পড়াশোনাতেও খুব ভালো ছিলেন, কøাসে সবার থেকে এগিয়ে থাকতোন তিনি। এরপরও লেখাপড়াই বেশিদূর এগোতে পারেন নি, তার শিক্ষাগত যোগ্যতা একেবারেই কম। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচ এস সি পাশ, তিনি আব্রাহাম খান জয় কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করেছিলেন। শাকিব খানের শিক্ষাগত যোগ্যতা কম হওয়ার অনেক সমালোচনায় পড়তে হয়েছে তাকে। অনেক আর্টিস্ট তার শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে মন্তব্য করেছেন। তবে তার শিক্ষাগত যোগ্যতা যেমনি হোক না কেন, বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের  চলচিত্র জগতে তার মতো অভিনেতা পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার। শাকিব খানের পর অনেক নায়ক বাংলাদেশের ছবিতে অভিনয় করেছেন। কিন্তু কেউ শাকিব খানের ধারেকাছে আসতে পারেন নি।

শাকিব খানের হিট ছবি

বর্তমানে বাংলাদেশের শীর্ষ নায়কের তালিকায় শাকিব খান রয়েছেন। ১৯৯৯ সালে প্রথম সিনামা জগতে পা রাখেন তিনি। শাকিব খান প্রথম ছবি করেছিলেন ১৯৯৯ সালে যে ছবির নাম ছিল অনন্ত ভালোবাসা। বর্তমানে তার সিনেমা জগতে পা রাখার বয়স হলো ২৫ বছর। তিনি দর্শককে নিত্য নতুন ছবি উপহার দিয়ে, দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশের পাশাপাশি কলকাতার নায়িকাদের বিপরিতেও কাজ করছেন। অসংখ্যা নায়িকার বিপরিতে তাকে কাজ করতে দেখা গিয়েছে। তবে সবথেকে বেশি কাজ করেছেন অপু বিশ^াসের সাথে। শাকিব খান ও অপু বিশ^াসের জুটি দর্শকের খুবই পচ্ছন্দ ছিল।  এই দুটি তারকা জুটি বেধে  অসংখ্যা সিমেনাতে অভিনয় করেছেন। শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের হিট সিনেমা গুলোর মধ্যে রয়েছে কোটি টাকার কাবিন, কথা দাও সাথী হবে, সন্তান আমার অহংকার, তুমি আমার প্রেম, তুমি স্বপ্ন তুমি সাধনা, জান আমার জান, কাবিন নামা, তোমার জন্য মরতে পারি, ভালোবাসা লাল গোলাপ, টাকার চেয়ে প্রেম বড় আরও অসংখ্যা ছবি দর্শকের মন ছুয়ে গেছে।

শাকিব খান জাতীয় চলচিত্র পুরষ্কার পেয়েছেন মোট চার বার।  যে সিনেমাগুলোর জন্য জাতীয় চলচিত্র পুরস্কার পেয়েছেন সেগুলো হলো- ভালোবাসলেই ঘর বাধা যায় না (২০১০), খোদার পরে মা (২০১২), আরও ভালোবাসবো তোমায় (২০১৫) ও সত্তা (২০১৭)। মেরিল প্রথম আলো পুরষ্কারপ্রাপ্ত সিনেমা গুলো হলো, আমার প্রানের স্বামী (২০০৭),  প্রিয়া আমার প্রিয়া (২০০৮), ভালো বাসলেই ঘর বাধা যায় না (২০১০), কিং খান (২০১১),  ডন নাম্বার ওয়ান (২০১২), হিরো দ্যা সুপারস্টার (২০১৪)), শিকারি (২০১৬), রাজনীতি (২০১৭)।

এখন পর্যন্ত প্রতিবছরই তিনি কোনো কোনো সুপারহিট ছবিতে অভিনয় করেছেন। যেসব ছবি করে তিনি হিট হয়েছেন সে ছবিগুলোর তালিকায় আছে- আমার স্বপ্ন তুমি, কোটি টাকার কাবিন, চাচ্চু, প্রিয়া আমার প্রিয়া, ভালোবাসলেই ঘর বাধা যায় না, হিরো দ্যা সুপারস্টার, শিকারি, নবাব, প্রিয়তমা।

বর্তমানে শাকিব খানের যে সিনেমা গুলো বক্স অফিসে হিট সেগুলো হলো-বিদ্রোহী, গলুই, লিডার আমি বাংলাদেশ, প্রিয়তমা এবং সবশেষ ছবি রাজকুমার। শাকিব খানের ক্যারিয়ারে সবথেকে বেশি আয়করা ছবি হলো প্রিয়তমা’ যা ২০২৩ সালে প্রকাশিত হয়। প্রিয়তমা ছবির ব্যাজেট হলো ২ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা এবং এটি প্রায় ৪৩ কোটি টাকার মতো কালেকশন হয়। এ ছবিটি যৌথ প্রযোজনার ছবি। শাকিবখানের সর্বশেষ ছবি প্রকাশিত হয়েছে রাজকুমার যা সিনেমা হলে এখনও সারা ফেলছে। বর্তমানে তিনি এখন তুফান ছবিতে শুটিং করছেন যার বিপরীতে কলকাতার নায়িকা মিমি চক্রবতী কাজ করছেন। সামনে কুরবানির ঈদে শাকিব ও মিমি চক্রবতি অভিনীত এবং রায়হান রাফী পরিচালিত  তুফান সিনেমা প্রকাশিত হতে যাচ্ছে। শাকিবের নতুন ছবি তুফান’ আবারাও চমক নিয়ে আসছে বলে ধারনা করছেন দর্শক।

শাকিব খানের স্ত্রী কে

বর্তমানে সিনেমা জগতের কিং খান, শাকিব খানের বিভিন্ন তথ্য জানলাম। এখন আসি তার ব্যাক্তিগত কিছু তথ্য নিয়ে। অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি বিয়ে ও বিচ্ছেদ নিয়ে বহুবার সমালোচনায় এসেছেন। তার ব্যাক্তিগত জীবনের কথা উঠে আসলেই অপু বিশ্বাস স এবং শবনম বুবলির নাম চলে আসে। অনেকেই জানতে চেয়েছেন শাকিব খানের বর্তমান স্ত্রী কে। চলুন তাহলে জেনে নিই-

 আমরা কম বেশি সবাই জানি শাকিব খান দুইবার বিয়ে করেছেন। প্রথম স্ত্রী হলেন অপু বিশ্বাস এবং দিত্বীয় স্ত্রী হলো শবনম বুবলি। প্রথমেই শাকিব এবং অপু বিশ্বাসের বিয়ে নিয়ে কিছু তথ্য জানা যাক। শাকিব, অপু বিশ্বাসকে বিয়ে করেন ২০০৮ সালের ৮ এপ্রিল। এ দুই দম্পতির একটা পুত্র সন্তানের জন্ম হয় ২০১৬ সালে, তার নাম রাখা হয় আব্রাহাম খান জয়। ২০১৭ সালে অপু বিশ্বাস তাদের ছেলেকে নিয়ে সামনে আসলে শাকিব খান তালাকের জন্য আবেদন করেন এবং ২০১৮ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি আনুষ্ঠানিক ভাবে দুজনের তালাক হয়।

এরপর ২০১৮ সালের ২০ জুলাই শাকিব বুবলির বিয়ে হয়। ২০২০ সালে তাদের সন্তান শেহজাদ খান বীরের জন্ম হয়। তবে বুবলির সাথে শাকিবের এখন কোনো সম্পর্ক নেয় বলে জানিয়েছেন, শাকিব খান নিজেই। বিভিন্ন তথ্য সূত্রে জানা গিয়েছ বর্তমানে কেউ এখন শাকিবের স্ত্রী নয়, দুজনের মধ্যে কারও সাথে তার কোনো সম্পর্ক নেয়। তবে দুই ছেলের সাথে ভালো সম্পর্ক রয়েছে শাকিব খানের।

লেখকের শেষ বক্তব্য

শাকিব খানের মোট সম্পত্তি - শাকিব খানের পড়াশোনা সম্পর্কে আজকের এই ব্লগে সকল তথ্য তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আশা করি শাকিব খানের মোট সম্পত্তি - শাকিব খানের পড়াশোনা সম্পর্কে আপনি বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। যদি আপনি এই ধরনের প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ব্লগ পোস্ট নিয়মিত পড়তে চান তাহলে আপনাকে প্রতিনিয়ত আমাদের এই ওয়েবসাইট ফলো করতে হবে।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন